Home    Source

 
 Home
 Subject Index
 Bukhari Shareef
 Muslim Shareef
 Abu Dawud
 Malik Muwatta
Google
See Arabic as Image 
51) সূরা আয-যারিয়াত (মক্কায় অবতীর্ণ), আয়াত সংখ্যা 60
 بِسْمِ اللّهِ الرَّحْمـَنِ الرَّحِيمِ
 শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু।
  Ayahs:   | 1-15 | 16-30 | 31-45 | 46-60 |
 
  آخِذِينَ مَا آتَاهُمْ رَبُّهُمْ إِنَّهُمْ كَانُوا قَبْلَ ذَلِكَ مُحْسِنِينَ  (16
এমতাবস্থায় যে, তারা গ্রহণ করবে যা তাদের পালনকর্তা তাদেরকে দেবেন। নিশ্চয় ইতিপূর্বে তারা ছিল সৎকর্মপরায়ণ,  
Taking joy in the things which their Lord gives them, because, before then, they lived a good life.  
 
  كَانُوا قَلِيلًا مِّنَ اللَّيْلِ مَا يَهْجَعُونَ  (17
তারা রাত্রির সামান্য অংশেই নিদ্রা যেত,  
They were in the habit of sleeping but little by night,  
 
  وَبِالْأَسْحَارِ هُمْ يَسْتَغْفِرُونَ  (18
রাতের শেষ প্রহরে তারা ক্ষমাপ্রার্থনা করত,  
And in the hour of early dawn, they (were found) praying for Forgiveness;  
 
  وَفِي أَمْوَالِهِمْ حَقٌّ لِّلسَّائِلِ وَالْمَحْرُومِ  (19
এবং তাদের ধন-সম্পদে প্রার্থী ও বঞ্চিতের হক ছিল।  
And in their wealth and possessions (was remembered) the right of the (needy,) him who asked, and him who (for some reason) was prevented (from asking).  
 
  وَفِي الْأَرْضِ آيَاتٌ لِّلْمُوقِنِينَ  (20
বিশ্বাসকারীদের জন্যে পৃথিবীতে নিদর্শনাবলী রয়েছে,  
On the earth are signs for those of assured Faith,  
 
  وَفِي أَنفُسِكُمْ أَفَلَا تُبْصِرُونَ  (21
এবং তোমাদের নিজেদের মধ্যেও, তোমরা কি অনুধাবন করবে না?  
As also in your own selves: Will ye not then see?  
 
  وَفِي السَّمَاء رِزْقُكُمْ وَمَا تُوعَدُونَ  (22
আকাশে রয়েছে তোমাদের রিযিক ও প্রতিশ্রুত সবকিছু।  
And in heaven is your Sustenance, as (also) that which ye are promised.  
 
  فَوَرَبِّ السَّمَاء وَالْأَرْضِ إِنَّهُ لَحَقٌّ مِّثْلَ مَا أَنَّكُمْ تَنطِقُونَ  (23
নভোমন্ডল ও ভূমন্ডলের পালনকর্তার কসম, তোমাদের কথাবার্তার মতই এটা সত্য।  
Then, by the Lord of heaven and earth, this is the very Truth, as much as the fact that ye can speak intelligently to each other.  
 
  هَلْ أَتَاكَ حَدِيثُ ضَيْفِ إِبْرَاهِيمَ الْمُكْرَمِينَ  (24
আপনার কাছে ইব্রাহীমের সম্মানিত মেহমানদের বৃত্তান্ত এসেছে কি?  
Has the story reached thee, of the honoured guests of Abraham?  
 
  إِذْ دَخَلُوا عَلَيْهِ فَقَالُوا سَلَامًا قَالَ سَلَامٌ قَوْمٌ مُّنكَرُونَ  (25
যখন তারা তাঁর কাছে উপস্থিত হয়ে বললঃ সালাম, তখন সে বললঃ সালাম। এরা তো অপরিচিত লোক।  
Behold, they entered his presence, and said: "Peace!" He said, "Peace!" (and thought, "These seem) unusual people."  
 
  فَرَاغَ إِلَى أَهْلِهِ فَجَاء بِعِجْلٍ سَمِينٍ  (26
অতঃপর সে গ্রহে গেল এবং একটি ঘৃতেপক্ক মোটা গোবৎস নিয়ে হাযির হল।  
Then he turned quickly to his household, brought out a fatted calf,  
 
  فَقَرَّبَهُ إِلَيْهِمْ قَالَ أَلَا تَأْكُلُونَ  (27
সে গোবৎসটি তাদের সামনে রেখে বললঃ তোমরা আহার করছ না কেন?  
And placed it before them.. he said, "Will ye not eat?"  
 
  فَأَوْجَسَ مِنْهُمْ خِيفَةً قَالُوا لَا تَخَفْ وَبَشَّرُوهُ بِغُلَامٍ عَلِيمٍ  (28
অতঃপর তাদের সম্পর্কে সে মনে মনে ভীত হলঃ তারা বললঃ ভীত হবেন না। তারা তাঁকে একট জ্ঞানীগুণী পুত্র সন্তানের সুসংবাদ দিল।  
(When they did not eat), He conceived a fear of them. They said, "Fear not," and they gave him glad tidings of a son endowed with knowledge.  
 
  فَأَقْبَلَتِ امْرَأَتُهُ فِي صَرَّةٍ فَصَكَّتْ وَجْهَهَا وَقَالَتْ عَجُوزٌ عَقِيمٌ  (29
অতঃপর তাঁর স্ত্রী চীৎকার করতে করতে সামনে এল এবং মুখ চাপড়িয়ে বললঃ আমি তো বৃদ্ধা, বন্ধ্যা।  
But his wife came forward (laughing) aloud: she smote her forehead and said: "A barren old woman!"  
 
  قَالُوا كَذَلِكَ قَالَ رَبُّكِ إِنَّهُ هُوَ الْحَكِيمُ الْعَلِيمُ  (30
তারা বললঃ তোমার পালনকর্তা এরূপই বলেছেন। নিশ্চয় তিনি প্রজ্ঞাময়, সর্বজ্ঞ।  
They said, "Even so has thy Lord spoken: and He is full of Wisdom and Knowledge."  
 
  Ayahs:   | 1-15 | 16-30 | 31-45 | 46-60 |