Home    Source

 
 Home
 Subject Index
 Bukhari Shareef
 Muslim Shareef
 Abu Dawud
 Malik Muwatta
Google
See Arabic as Image 
79) সূরা আন-নযিআ’ত (মক্কায় অবতীর্ণ), আয়াত সংখ্যা 46
 بِسْمِ اللّهِ الرَّحْمـَنِ الرَّحِيمِ
 শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু।
  Ayahs:   | 1-15 | 16-30 | 31-45 | 46-46 |
 
  إِذْ نَادَاهُ رَبُّهُ بِالْوَادِ الْمُقَدَّسِ طُوًى  (16
যখন তার পালনকর্তা তাকে পবিত্র তুয়া উপ্যকায় আহবান করেছিলেন,  
Behold, thy Lord did call to him in the sacred valley of Tuwa:-  
 
  اذْهَبْ إِلَى فِرْعَوْنَ إِنَّهُ طَغَى  (17
ফেরাউনের কাছে যাও, নিশ্চয় সে সীমালংঘন করেছে।  
"Go thou to Pharaoh for he has indeed transgressed all bounds:  
 
  فَقُلْ هَل لَّكَ إِلَى أَن تَزَكَّى  (18
অতঃপর বলঃ তোমার পবিত্র হওয়ার আগ্রহ আছে কি?  
"And say to him, 'Wouldst thou that thou shouldst be purified (from sin)?-  
 
  وَأَهْدِيَكَ إِلَى رَبِّكَ فَتَخْشَى  (19
আমি তোমাকে তোমার পালনকর্তার দিকে পথ দেখাব, যাতে তুমি তাকে ভয় কর।  
"'And that I guide thee to thy Lord, so thou shouldst fear Him?'"  
 
  فَأَرَاهُ الْآيَةَ الْكُبْرَى  (20
অতঃপর সে তাকে মহা-নিদর্শন দেখাল।  
Then did (Moses) show him the Great Sign.  
 
  فَكَذَّبَ وَعَصَى  (21
কিন্তু সে মিথ্যারোপ করল এবং অমান্য করল।  
But (Pharaoh) rejected it and disobeyed (guidance);  
 
  ثُمَّ أَدْبَرَ يَسْعَى  (22
অতঃপর সে প্রতিকার চেষ্টায় প্রস্থান করল।  
Further, he turned his back, striving hard (against Allah..  
 
  فَحَشَرَ فَنَادَى  (23
সে সকলকে সমবেত করল এবং সজোরে আহবান করল,  
Then he collected (his men) and made a proclamation,  
 
  فَقَالَ أَنَا رَبُّكُمُ الْأَعْلَى  (24
এবং বললঃ আমিই তোমাদের সেরা পালনকর্তা।  
Saying, "I am your Lord, Most High".  
 
  فَأَخَذَهُ اللَّهُ نَكَالَ الْآخِرَةِ وَالْأُولَى  (25
অতঃপর আল্লাহ তাকে পরকালের ও ইহকালের শাস্তি দিলেন।  
But Allah did punish him, (and made an) example of him, - in the Hereafter, as in this life.  
 
  إِنَّ فِي ذَلِكَ لَعِبْرَةً لِّمَن يَخْشَى  (26
যে ভয় করে তার জন্যে অবশ্যই এতে শিক্ষা রয়েছে।  
Verily in this is an instructive warning for whosoever feareth ((Allah)).  
 
  أَأَنتُمْ أَشَدُّ خَلْقًا أَمِ السَّمَاء بَنَاهَا  (27
তোমাদের সৃষ্টি অধিক কঠিন না আকাশের, যা তিনি নির্মাণ করেছেন?  
What! Are ye the more difficult to create or the heaven (above)? ((Allah)) hath constructed it:  
 
  رَفَعَ سَمْكَهَا فَسَوَّاهَا  (28
তিনি একে উচ্চ করেছেন ও সুবিন্যস্ত করেছেন।  
On high hath He raised its canopy, and He hath given it order and perfection.  
 
  وَأَغْطَشَ لَيْلَهَا وَأَخْرَجَ ضُحَاهَا  (29
তিনি এর রাত্রিকে করেছেন অন্ধকারাচ্ছন্ন এবং এর সূর্যোলোক প্রকাশ করেছেন।  
Its night doth He endow with darkness, and its splendour doth He bring out (with light).  
 
  وَالْأَرْضَ بَعْدَ ذَلِكَ دَحَاهَا  (30
পৃথিবীকে এর পরে বিস্তৃত করেছেন।  
And the earth, moreover, hath He extended (to a wide expanse);  
 
  Ayahs:   | 1-15 | 16-30 | 31-45 | 46-46 |